| |

Ad

রায়পুরে দুর্ধর্ষ চুরি ঘটনা ঘটেছে৮ বাড়িতে…

আপডেটঃ 3:20 pm | June 10, 2020

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় চোরের উপদ্রবে আতঙ্কিত এলাকাবাসী। এক রাতে ৩ গ্রামের ৮ বাড়িতে সিঁধ কেটে দুর্ধর্ষ চুরি ঘটনা ঘটেছে। গতকাল মঙ্গলবার (০৯ জুন) গভীর রাতে উপজেলার উত্তর চর আবাবিল ইউনিয়ন ৮ ও ৯নং ওয়ার্ড ও দক্ষিণ চর আবাবিল ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে এ চুরির ঘটনা ঘটে। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে ৩ গ্রামের মানুষ।

এছাড়া গত সপ্তাহে আরও ৪ বাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটেছে। উত্তর চর আবাবিল ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ঝাউডগী গ্রামের চাপরাশী বাড়ি, রাঢ়ী বাড়ি, মেস্তরী বাড়ি ও ৮নং ওয়ার্ডের দিঘলদী গ্রামের সরদার বাড়ি, মুতাইত বাড়ি, মোল্লা বাড়ি ও মৃধা বাড়ি এবং দক্ষিন চর আবাবিল ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বরোচর গ্রামের বাইন বাড়িতে সিঁধ কেটে চোরের দল চুরি করে।
স্থানীয়রা জানান, উপজেলার উত্তর চর আবাবিল ইউনিয়ন ও দক্ষিন চর আবাবিল ইউনিয়নের লোকজন যে যার মতো রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। সংঘবদ্ধ চোরের দল ৩টি গ্রামের ৮ বাড়িতে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে নগদ টাকা-পয়সা, দামী পোশাক, মোবাইল ও গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র নিয়ে যায়। এতে ৮ বাড়ি থেকে চোরের দল নগদ অর্থসহ প্রায় ৬লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায় বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই এলাকার কয়েকজন শিক্ষক জানান, রায়পুর উপজেলার শেষ ও হাইমচর উপজেলার শুরু এমন মধ্যবর্তী জায়গায় মাদকসেবন ও সরবরাহ দেদারসে চলার কারণে চোরের উপদ্রব বেড়ে চলেছে। নিয়মিত পুলিশি টহল জোরদার করা না হলে চুরি, ছিনতাই ও অপরাধমূলক ঘটনা আরো বেশি ঘটতে পারে। উল্লেখ্য যে, উপজেলার শেষ প্রান্তে দিঘলদী, ঝাউডগী ও বরোচর এলাকায় মাদকের সরগরম ব্যবসা চলছে। উঠতি বয়সের তরুণরা মাদকসেবন ও সরবরাহের কাজে জড়িত বলে জানা যায়।

উপজেলার হায়দরগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক এস.আই মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন জানান, একসঙ্গে ৮ বাড়িতে চুরির বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে খোঁজ-খবর নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।